কালোজাদু-পৃষ্ঠা-৬৭+৬৮

0Shares

এটাই হলো কথা । আমরা আমাদের  খালি চোখে  যা দেখছি , চর্মচক্ষুতে যা দেখছি সেটাই কি শেষ কথা, এর বাইরে কি আর কিছু নেই বা থাকতে পারেনা । অবশ্যই পারে, যা আমরা দেখছি সেটাই শেষ কথা না । এর বাইরে অনেক কিছুই আছে । ন্যানোটেকনোলজি নিয়ে এখন বিস্তর গবেষণা হচ্ছে । ন্যানোটেকনোলজি টা কে একটা সহজ উদাহরণ দিয়ে বোঝাই, ধরুন আপনার ঘরে একটা টেবিল আছে, আপনি সেখান বসে পড়াশুনা করেন, এখন আপনি সম্পূর্ন বোধবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষ থাকলেন ।কিন্তু হয়ে গেলেন ছোটখাটো ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাসের মত ।তখন এই টেবিলটাকে মাইক্রোস্কোপ এর সাহায্য ছাড়া যেমন / টেবিলের কাঠের যে রূপ দেখা যেতোনা, ঠিক টেবিলের সেই রূপ আপনি এখন এমনিতে দেখতে পাচ্ছেন ।এটাই হলো ন্যানোটেকনোলজি ।এক সময় হয়তো নানোটেকনোলজির মাধ্যমে এত ক্ষুদ্র রোবট আবিষ্কার সম্ভব হবে যেটা আপনার শরীরে ঢুকে বিনা কাটাছেড়াতে জটিল ও ঝুকিপূর্ণ অপারেশন করে বেরিয়ে আসবে ।

         আমার ওজন ৭০ কিলো গ্রাম । এটা কি শেষ কথা ? এটা কি মহাবিশ্বের সবখানে সমান ? এই মুহুর্তে চাঁদে গেলে বা মঙ্গল গ্রহে গেলে আমার ওজন বা ভর এক থাকবেনা । কারণ ওজন বা ভর আপনি যে স্থানে বসে পরিমাপ করছেন সেটা সে স্থানের অভিকর্ষজ বল / অভিকর্ষজ ত্বরণ ও মাধ্যাকর্ষণ শক্তির উপর নির্ভর করবে ।ধরুন আপনার ওজন ৭০ কেজি আপনি চাঁদে গেলে আপনার ওজন হবে ০৭ কেজি , আপনি পৃথিবীতে এক লাফে এক ফুট উপরে উঠলে চাঁদে অনায়াসে ০৬ ফুট উচ্চতায়  বিনা কষ্টে উঠতে পারবেন । তাহলে আমি মানব , আমার ক্ষমতার সঙ্গাটাও আপেক্ষিক । দ্রব্যগুণ  ও স্থানগুনে  আমার ক্ষমতার সঙ্গা ভিন্ন হয়ে যেতে পারে । আপনি আমি একটা গাছ বা মানুষকে যতটুকু বড় দেখছি বা ছোট দেখছি আসলেই কি সেটা তত বড় বা ছোট । এর উত্তরটাও আপেক্ষিক । আমার চোখের লেন্স এই গাছ বা মানুষটাকে নির্দিষ্ট RESOLUTION বা ZOOM এ দেখছে

(৬৭)

tree year ring

কাঠ কাটলে এ রকম দেখা যায় কি , microscope এর নিচে দেখা একটি কাষ্ঠল উদ্ভিদের অংশ , খালি চোখে যেটা আমরা দেখিনা

এক ধরনের মশা বা মাছি জাতীয় পতঙ্গের চোখ মাইক্রোস্কোপ এর নিচে


(৬৮)

পরবর্তী পৃষ্ঠা দেখুন

0Shares

Facebook Comments

error: Content is protected !!