কালোজাদু-পৃষ্ঠা-২৮৯+২৯০

0Shares

আল্লাহ এই সীমাবদ্ধতা দিয়েছেন এবং আমি এই সীমাবদ্ধতাকে  বলি মাত্রা , এর কারনে আমরা অনেক কিছু দেখতে পাইনা ,  আমাদের বোঝার বা  দেখার সীমাবদ্ধতা আছে , আমরা মানব চোখে যা দেখিনা ,মানব কানে যা শুনিনা ,আমাদের চামড়া যা বোধ করেনা আর তার বাইরে আর কিছু নাই এটা ভাবা চরম ভুল এর বাইরে অনেক কিছু আছে সে গুলো আমরা দেখতে পারবোনা ।  আপনাদের বিশ্বাস হচ্ছেনা , একটা উদাহরন দিয়ে বুঝায় ধরুন আমরা তো সবাই মানুষ , কেউ নারী বা পুরুষ এই পার্থক্য , প্রেম ,যৌনতা বা দেহ মিলনের ব্যাপারে বা আনন্দ সম্বন্দে আমাদের কোন কিছু অজানা নেই , কিন্তু ০৫ বছরের একজন বালক বা বালিকার শরীরে তো আপনার বা আমার মত সব অঙ্গ আছে তাহলে তাদের পক্ষে কি এগুলো বোধ বা বোঝা সম্ভব ? দেখেছেন একই মানুষ হওয়া স্বত্বেও আপনি আমি একটা মাত্রা তে বন্দী , তাই যদি পাঁচ বছরের ছেলে বা মেয়ে তাদের বাস্তব অভিজ্ঞতা এবং চোখের দেখাতে বলে ঋতুস্রাব , প্রেম , যৌনতা নেই তার মানে সব নেই হয়ে যাবে বা সেটা নেই এমন বলা যাবেনা । কারন চরম এই বাস্তবতা যেটা তার জীবনেও আসতে যাচ্ছে শুধুমাত্র সময়ের মাত্রার কারনে সে সেগুলো দেখতে পাচ্ছেনা , বা উপলব্ধি করতে পারছেনা । আবার ভেবে দেখুন আপনার আমার শরীরে লাখ লাখ ব্যাকটেরিয়া নামক অনুজীব আছে ,খালি চোখে আমরা তাদের দেখিনা , কিন্তু তারা আমাদের শরীরে বসবাস করছে ,এখন আমাদের শরীরের বাইরে কিছু আছে কিনা , কোন জগত আছে কিনা এই ব্যাকটেরিয়া ভাইরাস এর কাছে তা অজ্ঞাত ।এদের কাছে আমাদের শরীরটা হলো এক ব্যাপক বিশ্ব, যেখানে আমাদের আয়ু তাদের থেকে কয়েক হাজার গুন বা লক্ষ গুন বেশি ।সে হিসাবে তারা প্রজন্মের পর প্রজন্ম দেখবে আমরা অমর , আবার আমাদের দেহ ধংশ হলে মাটিতে পচলে তখন তারা যে পচাগলা দেহ থেকে মাটিতে ছড়িয়ে পড়বে সে সম্বন্ধে তাদের কোন আইডিয়া নেই । এ জন্য মানুষ হিসেবে একটু বুদ্ধি বলে যেটা দেখিনা সেটা নেই বলাটা ঠিক নয় ।

(২৮৯)

আচ্ছা এই যে বিভিন্ন ভাইরাস মানব শরীরের বাইরে ০৫ সেকেন্ড থেকে এক মিনিটের বেশি বাচেনা ,তাহলে সে কি করে বুঝবে বাইরের জগতের ব্যাপারটা ?  অন্যান্য জীব , গাছপালার জ্ঞান কি তার আছে ? কত পশু আছে সে জ্ঞান কি লাভ তার পক্ষে সম্ভব ।আবার পৃথিবীতে যাই ঘটুক তার গুরুত্ত্ব কি তার কাছে আছে ? এসব না ভেবেই হয়ত আমরা  বা  আপনি আমি প্রায় বলেই দিয়েছি মৃত্যুর পরে জীবন নেই , ‌ পৃথিবীর বাইরে আর জীবন নেই , মানুষের থেকে বুদ্ধিমান বা উন্নত ক্ষমতার কিছু নেই ‌ ।একটা জিনিষ ভাববেন যে আমাদের চোখের থেকে সামান্য দুরত্বে আমদের ভুরু ও‌ কান অবস্থিত তাই আমরা দেখতে পাইনা খালি চোখে ,‌ যদি আয়না বা পানিতে আমাদের ছাপ না পড়তো তাহলে ব্যাপারটা কি হতো বলুন তো ।আবার দেখুন আপনার ছেলে বা মেয়েকে আপনি এত কষ্ট করে , নিজে না খেয়ে  মানুষ করছেন  ,  কিসের জন্য ? অদৃশ্য একটা মায়া বলে ,  আবার আপনার ০২ বছরের  বাচ্চাটা চলতে ফিরতে বা কথা বলতে বা জ্ঞানে বুদ্ধিতে আপনার ধারে নেই , কিন্তু আপনার থেকে ভাল খাবার  খায় সে , আপনি কষ্ট করে হলেও তাকে খাবার দিচ্ছেন , সে কি আপনাকে জোর করছে ? আপনার স্ত্রী থেকে অনেক সুন্দর বা ভাল মহিলা আপনি দেখেন কিন্তু তাকে ত্যাগ করেননা বা করতে পারেননা কেন , একঘেয়ে লাগেনা কেন ? ‌একঘেয়ে লাগতো যদি দাম্পত্য জীবন শুধু দেহের সম্পর্ক হতো , এরকম অদৃশ্য অনেক কিছু আছে , আমাদের বোঝার সীমাবদ্ধতা আছে , জ্ঞানের সীমাবদ্ধতার কারনে কিছু জীবের কাছে কিছু জীব তো জড়বস্তু  ধরুন মাইক্রোস্কোপে আবিষ্কার না হলে আপনি আমি ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস জীব এটা কোনদিন আছে বুঝতে পারতাম না , ক্রেস্কোগ্রাফ না হলে গাছ জড়বস্তু হয়ে থাকতো আমাদের কাছে , মহাবিশ্বে প্রান খোজার ক্ষেত্রে মানুষের জ্ঞান ও সেই রকম সীমাবদ্ধ আমরা যেভাবে বুঝে প্রান খুজছি তাতে আমদের সাথে চেহারা ,চলন বা দেহে মিলে না গেলে বা আমাদের  মত কিছু না হলে আমরা কোনদিনই মহাবিশ্বে প্রান পাবোনা যদিনা আমাদের মত কথাটা বা ব্যাপারটার বাইরে যাবার জ্ঞান লাভ না হয় ।

(২৯০)

পরবর্তী পৃষ্ঠা দেখুন

0Shares

Facebook Comments

error: Content is protected !!