কালোজাদু-পৃষ্ঠা-০৯+১০ (আরম্ভ) | MEHBUB.NET

কালোজাদু-পৃষ্ঠা-০৯+১০ (আরম্ভ)

শুরুতেই বলে রাখি প্রথম দিকের কয়েকপাতার লেখাগুলো অকারন মনে হতে পারে । মূল বিষয়বস্তু ও পরবর্তী লেখাগুলো বোঝবার সূবিধার্থে শুরুতে কয়েকপাতা সাধারণ ও গতানুগতিক জানা ইতিহাস টাইপের লেখা।কিছু উল্লেখযোগ্য সভ্যতা ও তার পরিচিতি (সভ্যতাগুলোর নাম –সর্বপ্রাচীন থেকে শুরু, সেই সভ্যতার উল্লেখযোগ্য আবিষ্কার ,শাসক , ঘটনা )

মেসোপটেমিয় সভ্যতা – বর্তমান ইরাকের টাইগ্রিস ও ইউফ্রেটিস নদীর মধ্যবর্তী অঞ্চলে অবস্থিত ছিল এই সভ্যতা । বর্তমান ইরাক, সিরিয়া , তুরস্কের উত্তরাংশ ও ইরানের খুযেস্তান প্রদেশ নিয়ে ছিলো এই সভ্যতা । খ্রিষ্টপূর্ব ৩৫০০ থেকে ৩০০০ অব্দের মধ্যে উন্মেষ ঘটেছিলো এই সভ্যতার ।রোমান, পারসিয়ানদের মাঝে হাতবদল হতে হতে ৭০০ খ্রিস্টাব্দে এসে এখানে মুসলিম সভ্যতার উন্মেষ ঘটে । মুসলিম খিলাফতের শাসনামলে পরবর্তীতে এই অঞ্চল ইরাক নামে পরিচিতি লাভ করে ।মেসোপটেমিয়া শব্দটি গ্রীক শব্দ । এর অর্থ হলো দুটি নদীর মধ্যবর্তী অঞ্চল ।নলখাগড়ার জঙ্গল ও খেজুর গাছ ছিলো এই অঞ্চলের প্রধান বৃক্ষ । পরবর্তীতে টাইগ্রীস ও ইউফ্রেটিস নদীর পলি জমে ভরাট হয়ে খ্রিস্টপূর্ব ৬০০০ অব্দ থেকেই এখানে মানুষের সমবেত হবার মাধ্যমে এই সভ্যতা গড়ে ওঠে । দূর্বল প্রতিরক্ষার মাধ্যমে বারবার বহিশত্রুর আক্রমনে বার বার আক্রান্ত হতে হতে এই সভ্যতা ভাগ হয়ে এর ভিতর বেশ কটি সভ্যতার উন্মেষ ঘটে  ।উত্তরাংশে আসিরীয় ও ব্যাবিলনীয় সভ্যতা । আর ব্যবিলনের উত্তরে আক্কাদ ও দক্ষিনে সুমেরীয় সভ্যতা গড়ে ওঠে ।

সভ্যতায় এদের অবদান t

০১) এদের সভ্যতায় ধর্ম পালন, মন্দিরের উল্লেখ ও দেবতার পুজার উল্লেখ রয়েছে ।

০২) মাটির নিচে জল রয়েছে এবং ভূপৃষ্ঠ পানির উপর ভাসমান এটা তারা মনে করতো ।

 (৯)

০৩) এরা মন্দিরে ফসল জমা দেয়ার জন্য ও কে কতটুকু ফসল জমা দিলো সেই হিসাব রাখার সুবিধার্থে গণিত শাস্ত্রের উদ্ভাবন করে । এদের গণণার সীমা ছিলো ষাট পর্যন্ত । এখান থেকেই ষাট মিনিটে এক ঘন্টা ও ষাট সেকেন্ডে এক মিনিটের হিসাব আসে । তারাই প্রথমে ১২ মাসে ০১ বছর ও ৩০ দিনে এক মাস এই হিসাবের প্রচলন করে ।

০৪) তামা ও টিনের সংমিশ্রনে ব্রোঞ্জ ধাতুর আবিষ্কার তারা করেছিলো ।

০৫) তারা পৃথিবীকে ৩৬০ ডিগ্রীতে ভাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো, ১২ টি রাশিচক্র ও জলঘড়ির আবিষ্কার তারাই করেছিলো ।  

০৬) গিলগামেশ নামে তাদের সেমেটিক ভাষায় সাহিত্য রচনা করেছিলো ।  

   ০৭) সম্রাট নেবুচাদনেজারের রহস্যময় ঝুলন্ত উদ্যান এখনো পৃথিবীর ০৭ টি প্রাচীন  সপ্তাশ্চার্যের একটি ।

এখন আপনি দেখুন এই সভ্যতার আবিষ্কৃত সময়, রাশিচক্র, পদক দিতে গিয়ে ব্রোঞ্জের ব্যবহার আমরা করছি না ?

মিশরীয় সভ্যতা –  খ্রিস্টপূর্ব ৫০০০ অব্দে মিশরে এ সভ্যতার সুচনা হয় ।ফারাও সাম্রাজ্যের সুচনা হয় খ্রিস্টপূর্ব ৪০০০ অব্দে ।এই রাজবংশের উত্তরাধিকারীরা বংশানুক্রমে ফারাও হিসেবে পরিচিতি লাভ করে ।খ্রিস্টপূর্ব ১০ম শতকে লিবিয়ার এক বর্বর জাতির হাতে পতন হয় ৩০০০ হাজার বছরের প্রাচীন ফারাও রাজবংশের । সভ্যতায় মিশরীয়দের উল্লেখযোগ্য অবদান –

১) মিশরের পিরামিড

২) মমি

৩) হায়ারোগ্লিফিকস

৪) জ্যোতির্বিদ্যা

(১০)

পরবর্তী পৃষ্ঠা দেখুন

error: Content is protected !!