কালোজাদু-পৃষ্ঠা-৪৫+৪৬ | MEHBUB.NET

কালোজাদু-পৃষ্ঠা-৪৫+৪৬

আমরা ২০ বছর সংগ্রাম করে আমরা স্বাধীন হই তবে ৭১ এর গুরুত্ত নিঃসন্দেহে তখন কমে যাবে বই কি ? আর ভৌগলিক কারনে বাংলাদেশ কখন যদি মানচিত্র পরিবর্তিত হয় তবে ইতিহাস তো আরো বদলে যাবে । হয়তো পানির নিচে ডুবে অনেক যায়গা হারিয়ে যাবে, আমাদের বাংলাদেশের অনেক যায়গার পুর্ব নাম তো আমরা ভুলে গেছি সেগুলো গুরুত্ত হারিয়েছে, আচ্ছা যদি বলি বাংলাদেশের চন্দ্রদীপ যাব, বা যদি বলি খলিফাতবাদ যাব, এগুলো যথাক্রমে বরিশাল এবং যশোর এর পুর্ব নাম, এই নাম গুলো কিন্তু পুরাণ এর উদাহরন ।আর গঙ্গারিডি নামটা তো পুরাণ এর খাতাতে চলে গেছে, এই গঙ্গারিডি দখল করতে সম্রাট আলেক্সান্ডার দ্যা গ্রেট এসে ফিরে গিয়েছিলেন না পেরে সেটা কজন জানে, যশোর এর বর্তমান দড়াটানা মোড়ের ভৈরব নদে  একসময় মিসরীয় নাবিকরা ২০০০-৩০০০ বছর আগে নৌকা ভেড়াতো বাবসার জন্য এগুলো কে জানে, এগুলো ও কিন্তু সেই পুরাণ এর উদাহরন ।

 পূরাণ হলো সেই সব ঘটনার বা ইতিহাসের সমষ্টি যেটা বাস্তব সত্য হওয়া স্বত্তেও কালের আবর্তে গুরুত্ব হারাতে হারাতে এক সময় রূপকথা হয়ে যায় । 

৬২) বর্তমানের বড় বন জঙ্গল ,নদী সাগর মহাসাগর, বর্তমানের বড় মরুভুমি ,বর্তমানের উত্তর মেরু দক্ষিন মেরুর বরফ ঢাকা অঞ্চল সবগুলো কিন্তু একসময়ের মহাসভ্যতার কবর মানে একসময় এই যায়গাগুলোতে নির্ঘাত বড় বড় সভ্যতা ছিল ।দেখা যায় সুন্দরবন এর যায়গাতে ২০০০ বছর আগে সুন্দরবন ছিলনা , ছিল ব্যস্ততম জনকোলাহল এর যায়গা , ০৫ হাজার বছর আগে সাহারা বা মধ্যপ্রাচ্যের মরুভুমিতে হয়ত ব্যস্ততম এবং সুজলা সুফলা কোন সভ্যতা ছিল ।আটলান্টিক মহাসাগরের যায়গাতে আটলান্টিস ছিল ।

         ৬৩) মহাশূণ্যের গন্ধটা কেমন, মহাশূণ্যে যখন নভোচারীরা বের হন তখন ওই যে ওয়েল্ডিং বা ঝালাইয়ের দোকানে লোহা পোড়া যে গন্ধ বের হয় সেই রকম গন্ধ ।আর গ্যালাক্সী গুলোর কেন্দ্রের থেকে রাসপবেরীর গন্ধ আসে । মূলত ইথাইল ফরমেটের(C3H6O2) অস্তিত্ব থেকে ই এই গন্ধ আসে ।   

৬৪)  ভিডিও ব্যাপারটা বা ছবি তোলার ব্যাপারটা অদ্ভুত মনে হয় না, ব্যাপারটা আপনার আমার কাছে কত সাধারন একটা ব্যাপার, কিন্তু এটা কত সহজ ভাবে আমাদের সময় কে ধরে রাখছে , এর পিছনে কত জটিল একটা সমীকরণ কাজ করে

(৪৫)

জানেন ? আপনি যদি কোন ভিডিও দেখেন তবে সেই ভিডিওর প্রত্যেকটি সেকেন্ড

 অন্তত পক্ষে ২৪ টি স্থির ছবি বহন করছে ,মানে আপনি এক সেকেন্ড ভিডিও দেখার সময় ভাবতেও পারছেননা যে, এই  এক সেকেন্ডে আপনার সামনে দিয়ে অন্তত ২৪ টি স্থির চিত্র বা ফটো  চলে যাচ্ছে ।আর সুপার স্পীড হাই রেজুলেশন ক্যামেরা সেকেন্ডে ০১ মিলিয়ন স্থির চিত্র নিতে পারে ।আপনি আমি এই ক্যামেরা আবিষ্কার পূর্বে না হওয়াতে সত্যিই দূর্ভাগা, যদি ০২ হাজার বছর পূর্বে থেকে ক্যামেরা থাকতো, তাহলে আপনি আমি কাদের দেখতে পারতাম, পৃথিবীর সব থেকে স্মরণীয় সময় গুলো যে গত ০২ হাজার বছরে চলে গেছে ।

৬৫)আমাদের শরীরে ০১ ট্রিলিয়ন ব্যাক্টেরিয়া থাকে {০১ ট্রিলিয়ন =১,০০০, ০০০, ০০০,০০০ টি মাত্র} ।যার ওজন ০২ কেজি ।মানে আমাদের শরীরের মোট ওজনের

০২ কেজি ওজন হলো ব্যাক্টেরিয়ার ওজন । এর কোনটা আমাদের জন্য উপকারি, কোনগুলো অপকারী ।এদের যদি আমরা মেরে ফেলতাম শরীর থেকে তাহলে আমাদের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বা ইমিউন সিস্টেম /এন্টিবডি একেবারে শূণ্য হয়ে যেত ।দৃশ্যমান যে কোন জীবের শরীরকে বলা যেতে পারে ভিন্ন ভিন্ন জীবের ও ভিন্ন ভিন্ন জটিল যন্ত্রের একত্রিত রূপ মাত্র ।

ভয়েজার থেকে পৃথিবীর ০৬ বিলিয়ন কিলোমিটার দুর থেকে তোলা ছবি

(৪৬)

পরবর্তী পৃষ্ঠা দেখুন

error: Content is protected !!